হিন্দু মুসলিম সম্প্রীতির ধরে নির্বিঘ্নে চলার আহ্বান আওয়ামী লীগ নেতাদের।

দেশে অতিসম্প্রতি মুসলিম সম্প্রদায়ের পবিত্র কুরআন অবমাননার দায়ে কুমিল্লায় হিন্দু সম্প্রদায়ের পূজা মন্ডব ভাঙচুর এই দুটিই বিচ্ছিন্ন ঘটনা।
যে বা যারা এই অপকর্ম সংগঠিত করেছেন তারা আর যাই হোক ধর্ম প্রিয় হতে পারে না।
তারা অশোর বা শয়তান।
তাদের বিচার ইহকালেও হবে পরকালেও হবে।

শত বছরের বাঙ্গালী সংস্কৃতির একটা মিলন মেলা বাংলাদেশ,এখানে সবাই মিলে মিশে একাকার হয়ে বসবাস করে আসছেন।

কতিপয় স্বার্থান্বেষী মহল এই সম্প্রীতি নষ্ট করে হিন্দু মুসলিম সংঘাত সৃষ্টি করতে চায়।
তাদেরকে চিহ্নিত করতে হবে।
তাদেরকে সমূলে উৎপাটন করে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে হবে।

এভাবেই সংক্ষিপ্ত আলোচনায় বক্তব্য রাখেন নবীনগর উপজেলার লাউর ফতেহপুর গ্রামে বিভিন্ন পূজা মন্ডবে পরিদর্শনে যাওয়া আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও উপস্থিত নেতৃবৃন্দ।

গতকাল মহানবমীতে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সাদেক,উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য,আবদুল্লাহ আল মাছুম,ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল কাশেম মুকাদ্দুস এর নেতৃত্বে বনিকপাড়া পরিদর্শন শেষে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনায় অংশ নেন তারা।

আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন এলজিইডি মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শ্রী বিপুল বনিক, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তরের অতিরিক্ত সচিব শ্রী দিলীপ বনিক, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সাদেক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আবদুল্লাহ আল মাছুম, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল কাশেম মুকাদ্দুস,যুবদল নেতা কাহহার রানা সরকার, যুবলীগ নেতা আক্কাস আলী প্রমুখ।

বক্তারা শতবছরের সম্প্রীতি লালন করে এগিয়ে যেতে জ্ঞানগর্ভ আলোচনা করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন ইয়থ অর্গানাইজেশন ঢাকার সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা এমদাদ মাহমুদ সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।